বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১২

নাগার্জুনা

আগের দুই পোস্টে জনপ্রিয় তেলেগু অভিনেতা মহেশ বাবু আল্লু অর্জুন সম্পর্কে লিখেছিলাম। আজকে লিখছি নাগার্জুনা সম্পর্কে।

নাগার্জুনা ( আক্কিনেনি নাগার্জুনা রাও ) একজন ভারতীয় চলচ্চিত্র অভিনেতা ও প্রযোজক যিনি তেলেগু ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে(Tollywood)​কাজ করে। তিনি কয়েকটি বলিউড এবং কলিউড চলচ্চিত্রেও কাজ করেন। তেলেগু সুপারস্টার নাগার্জুনার জন্ম ২৯ আগস্ট। তিনি ঝানু অভিনেতা আক্কিনেনি নাগেস্বরা রাও এর পুত্র,যিনি ষাট ও সত্তরের দশকের জনপ্রিয় অভিনেতা ছিলেন।
নাগার্জুনা
নাগার্জুনা নাগ / রাজা / যুবা সম্রাট নামেও পরিচিত। তাঁর দীর্ঘস্থায়ী সুদর্শন (ever lasting handsome looks)
চেহারার জন্যও জনপ্রিয়। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রকৌশল ডিগ্রী নেন। তার অকপট এবং খোলা ব্যক্তি সত্তার কারনে, তিনি দক্ষিণ ভারতীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে স্থায়ী জায়গা করে নিয়েছেন। তার অগণিত পরীক্ষামূলক সিনেমা জন্য তিনি সেলুলয়েড বিজ্ঞানী নামেও ডাকা হয়। এ বহুমুখী অভিনয় প্রতিভার কারনে তাকে তেলেগু চলচ্চিত্রের অন্যতম অভিনেতা হিসেবে ধরা হয়।
"বিক্রম"(1986),তার ডেব্যু চলচ্চিত্র (হিন্দি হিরো ফিল্মের তেলুগু পুনর্নির্মাণ), এই ফিল্ম দিয়ে তিনি তরুণ হৃদয়ে জায়গা করে নেন। তার মাত্র ৪টি ছবি পর "মজনু"(Majnu) তে বিয়োগান্তক চরিত্রে অভিনয় করে তিনি প্রমাণ করেন যে বিয়োগান্তক রাজা(tragedy king) হিসাবে তার পিতার ইমেজের সাথে তার ইমেজের মিল আছে। তিনি তার পিতা লিজেন্ডারি সিনিয়র আক্কিনেনির সাথে "Collectorgari Abbai" নামের চলচ্চিত্রের জন্য জুটি বাঁধেন। ছবিটি বক্স অফিসে ব্যাপক সাফল্য পায়। নাগার্জুনার অভিনয় ইতিবাচক সমালোচনা অর্জন করে এবং তিনি অনেক সুপারহিট ব্লকব্লাস্টার চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন যার মধ্যে রাঘবেন্দ্র রাও এর 'Aakhari Poratam' বিপরীত শ্রীদেবী, রাম গোপাল ভার্মার 'শিব' বিপরীতে অমলা, মণি রত্নম এর 'Geethanjali' বিপরীতে গীরিজা, প্রিয়দর্শন এর 'Nirnayam' বিপরীতে অমলা, রাম গোপাল ভার্মার 'Antham' বিপরীত
উর্মিলা মার্তন্ডকার, মুকুল এস আনন্দর 'খুদা গাওয়াহ' তে অমিতাভ বচ্চন এবং শ্রীদেবীর পাশাপাশি, শিব নাগেস্বরা রাও য়ের এর 'Sisindri' তে একইসাথে টাবু এবং পূজা বাত্রা অন্যতম।

নাগকে সেলুলয়েড বিজ্ঞানী বলা হয়। তিনি তার আশেপাশে থাকা প্রতিভা খুঁজে বের করতে পারেন। গীথা কৃষ্ণ, রাম গোপাল ভার্মা, উপ্পালাপাতি নারায়ণ রাও, প্রাভিন গান্ধী, ভি.আর.প্রতাপ এবং Jonnalagadda Srinivasa Rao, Dasaratha ইত্যাদি জনপ্রিয় পরিচালকে খুঁজে বের করার কৃতিত্ব নাগার্জুনার। তিনি 'Gulabi' এর একটি ৫ মিনিট এর দৃশ্য দেখে নতুন পরিচালক কৃষ্ণ ভামসিকে 'Ninne Pelladatha' পরিচালনার প্রস্তাব দিয়েছিলেন।

নাগার্জুনা তার বাবার প্রোডাকশন অন্নপূর্না স্টুডিওকে পুনরায় চালু করেন এবং যা টলিউডে সাম্প্রতিককালের সর্বাপেক্ষা সফল কোম্পানির একটি হয়েছে। নাগার্জুনার সন্ধ্যা ৬টার পর কখনো কাজ করেন না। যদি রাতে শুটিং থাকে তাহলে ৪দিন আগে জানাতে হয়। নাগার্জুনা যখন ফিল্ম প্রযোজনা করে তখন তা নিয়ে পরীক্ষা করতে কখনও ইতস্ততঃ করে না । তিনি নতুনদের চলচ্চিত্র পরিচালনা করার সুযোগ দেন,যাদের আগের চলচ্চিত্র পরিচালনা করার অভিজ্ঞতা নাই। নতুনরা কখনো তাকে নিরাশ করেনি যার উদাহরন রাম গোপাল ভার্মা। বর্তমানে ভারতের সফল পরিচালকদের একজন।
নাগা চৈতন্য
তার পুত্র নাগা চৈতন্যও তেলেগু ফিল্মের উঠতি তারকা। চলচ্চিত্রে অসাধারণ অভিনয়ের জন্য নাগার্জুনা দুটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, ছয়টি নান্দি পুরস্কার এবং তিনটি ফিল্ম ফেয়ার পুরস্কার অর্জন করেন।

তথ্য সূত্রঃ
  • http://nagarjuna-info.blogspot.com
  • http://www.kaneesha.com/Nagarjuna
  • http://en.wikipedia.org/wiki/Akkineni_Nagarjuna

Post Comment

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন